এডভান্স ফ্রন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট উইথ রিয়েক্ট জেএস

  • কোর্সের মেয়াদ : ৬ মাস
  • কোর্স ফী : ২০০০০
  • ক্লাসের সময় : রাত ১০টা - ১২টা (রবি,বুধ)
  • ক্লাস শুরুর তারিখ : ২রা জুন ২০২১

অভিজ্ঞতা অর্জন হয় দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে। আর দক্ষতাই পারে সাফল্যের শিখরে পৌঁছে দিতে। তাই সময় নষ্ট না করি, দক্ষতা বৃদ্ধি করি।

এডভান্স ফ্রন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট উইথ রিয়েক্ট জেএস

বর্তমান সময়ে রিয়েক্ট জেএস এর অনেক চাহিদা রয়েছে। এটি অনেক জনপ্রিয় ফ্রেমওয়ার্ক। ইন্ডাস্ট্রিতে রিয়েক্ট জেএস ডেভেলপারদের অনেক চাহিদা রয়েছে। ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসগুলোতেও বড় বড় প্রজেক্টের কাজ পাওয়া যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। কিন্তু ঘাটতি রয়েছে দক্ষ ডেভেলপারের।

০০+

গ্রাডুয়েটস

৮০ ঘন্টা

ক্লাস আওয়ার্স

৪০

লেকচার

২৪/৭

অনলাইন সাপোর্ট

আমাদের কোর্স কারিকুলাম

জাভাস্ক্রিপ্ট (২.৫ মাস)

কোর্সের প্রথম আড়াই মাস আমরা ফোকাস করবো জাভাস্ক্রিপ্ট ল্যাঙ্গুয়েজের উপর। জাভাস্ক্রিপ্টের একদম ব্যাসিক থেকে দেখানো হবে কোর্সে। এই কোর্সে অংশগ্রহণের পূর্বে জাভাস্ক্রিপ্টের কোনোরূপ পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকলেও চলবে তবে এইচটিএমএল / সিএসএসের উপর ব্যাসিক ধারণা থাকতে হবে। কোর্সে যদিও এইচটিএমএল / সিএসএসের একটা রিফ্রেশার দেওয়া হবে তবে মূল ফোকাসটাই থাকবে জাভাস্ক্রিপ্ট এবং রিয়্যাক্টের উপর।

জাভাস্ক্রিপ্টের ডোম ম্যানিপুলেশন, ফাংশনাল প্রোগ্রামিং, অবজেক্ট অরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং এর কোর কনসেপ্ট কভার করা হবে। এছাড়াও জাভাস্ক্রিপ্ট ইউজ করে কিভাবে এপিআই থেকে ডাটা ফেচ করে আনা যায়, অ্যাসিঙ্ক্রোনাশ প্রোগ্রামিঙের খুঁটিনাটি সবকিছুরই বিস্তর আলোচনা হবে প্রথম আড়াই মাসে। এছাড়াও সাথে তো প্রজেক্ট থাকছেই।
 

রিয়্যাক্ট জেএস (২.৫ মাস)

জাভাস্ক্রিপ্টের খুঁটিনাটি পাকাপোক্ত করার পর আমরা ফোকাস করবো রিয়্যাক্ট এর উপর। প্রথম আড়াই মাসে আমরা জাভাস্ক্রিপ্টের যা কিছু শিখেছি সেটার উপরে ভিক্তি করেই আমরা আমাদের রিয়্যাক্ট এর জার্নি শুরু করে দিবো। রিয়্যাক্ট যে কত বেশি জোস একটা লাইব্রেরি সেটা আপনারাই বুঝতে শুরু করবেন। রিয়্যাক্ট এর কোর কনসেপ্টের উপর ফোকাস থাকবে কোর্সের প্রথমে এবং আমাদের এই পুরো সময়টা জুড়েই আমরা প্রোজেক্ট বেজড লার্নিং মেথড ফলো করবো। এক একটা করে কোর কনসেপ্টের পরে সেটা প্রোজেক্টে ব্যবহার করে রিয়েল লাইফ ইমপ্লিমেন্টেশন দেখবো। রিয়্যাক্ট এর দুইটা ইম্পরট্যান্ট কনসেপ্ট, রিডাক্স এবং রিয়্যাক্ট হুক্স নিয়ে বিস্তর আলোচনা করবো কোর্সে। রিয়্যাক্ট এর রিয়েল লাইফ ডিজাইন প্যাটার্ন, কম্পোনেন্ট লাইফসাইকেল, ডিবাগিং ইত্যাদি নিয়ে জানবো আমরা কোর্সে। 

এছাড়াও গুগলের ফায়ারবেইজ, নোড, মঙ্গোডিবি, ইত্যাদি ব্যাকেন্ড ফিচারস নিয়েও আমরা পড়াশুনা করবো। এবং কোর্সের শেষে আমরা রিয়্যাক্ট দিয়ে একটি কমপ্লিট ফুলস্ট্যাক অ্যাপ ডেভেলপ করে সেটা হোস্ট করবো। এরই মাধ্যমে আমাদের লার্নিং সম্পূর্ণতা লাভ করবে।

  • জাভাস্ক্রিপ্ট (২.৫ মাস)

  • রিয়্যাক্ট জেএস (২.৫ মাস)

কোর্সের প্রথম আড়াই মাস আমরা ফোকাস করবো জাভাস্ক্রিপ্ট ল্যাঙ্গুয়েজের উপর। জাভাস্ক্রিপ্টের একদম ব্যাসিক থেকে দেখানো হবে কোর্সে। এই কোর্সে অংশগ্রহণের পূর্বে জাভাস্ক্রিপ্টের কোনোরূপ পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকলেও চলবে তবে এইচটিএমএল / সিএসএসের উপর ব্যাসিক ধারণা থাকতে হবে। কোর্সে যদিও এইচটিএমএল / সিএসএসের একটা রিফ্রেশার দেওয়া হবে তবে মূল ফোকাসটাই থাকবে জাভাস্ক্রিপ্ট এবং রিয়্যাক্টের উপর।

জাভাস্ক্রিপ্টের ডোম ম্যানিপুলেশন, ফাংশনাল প্রোগ্রামিং, অবজেক্ট অরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং এর কোর কনসেপ্ট কভার করা হবে। এছাড়াও জাভাস্ক্রিপ্ট ইউজ করে কিভাবে এপিআই থেকে ডাটা ফেচ করে আনা যায়, অ্যাসিঙ্ক্রোনাশ প্রোগ্রামিঙের খুঁটিনাটি সবকিছুরই বিস্তর আলোচনা হবে প্রথম আড়াই মাসে। এছাড়াও সাথে তো প্রজেক্ট থাকছেই।

জাভাস্ক্রিপ্টের খুঁটিনাটি পাকাপোক্ত করার পর আমরা ফোকাস করবো রিয়্যাক্ট এর উপর। প্রথম আড়াই মাসে আমরা জাভাস্ক্রিপ্টের যা কিছু শিখেছি সেটার উপরে ভিক্তি করেই আমরা আমাদের রিয়্যাক্ট এর জার্নি শুরু করে দিবো। রিয়্যাক্ট যে কত বেশি জোস একটা লাইব্রেরি সেটা আপনারাই বুঝতে শুরু করবেন। রিয়্যাক্ট এর কোর কনসেপ্টের উপর ফোকাস থাকবে কোর্সের প্রথমে এবং আমাদের এই পুরো সময়টা জুড়েই আমরা প্রোজেক্ট বেজড লার্নিং মেথড ফলো করবো। এক একটা করে কোর কনসেপ্টের পরে সেটা প্রোজেক্টে ব্যবহার করে রিয়েল লাইফ ইমপ্লিমেন্টেশন দেখবো। রিয়্যাক্ট এর দুইটা ইম্পরট্যান্ট কনসেপ্ট, রিডাক্স এবং রিয়্যাক্ট হুক্স নিয়ে বিস্তর আলোচনা করবো কোর্সে। রিয়্যাক্ট এর রিয়েল লাইফ ডিজাইন প্যাটার্ন, কম্পোনেন্ট লাইফসাইকেল, ডিবাগিং ইত্যাদি নিয়ে জানবো আমরা কোর্সে। 

এছাড়াও গুগলের ফায়ারবেইজ, নোড, মঙ্গোডিবি, ইত্যাদি ব্যাকেন্ড ফিচারস নিয়েও আমরা পড়াশুনা করবো। এবং কোর্সের শেষে আমরা রিয়্যাক্ট দিয়ে একটি কমপ্লিট ফুলস্ট্যাক অ্যাপ ডেভেলপ করে সেটা হোস্ট করবো। এরই মাধ্যমে আমাদের লার্নিং সম্পূর্ণতা লাভ করবে।

কোর্সটা কি আপনার জন্য?

আপনি কি একজন শিক্ষার্থী?

পড়াশোনার পাশাপাশি আইটি কাজের বাস্তবমুখী শিক্ষা একজন শিক্ষার্থীর বর্তমান এবং ভবিষ্যতকে উজ্জ্বল করবে এবং বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বা কাজের সুযোগ করে দিবে এতে কোন সন্দেহ নেই। বরং পড়াশোনার পাশাপাশি অনেক শিক্ষার্থী বিভিন্ন খন্ডকালিন কাজ করতে চান। আইটি কোন কাজে দক্ষ হলে একজন শিক্ষার্থী পড়াশোনার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মার্কেটে কাজ করতে পারেন এবং নিজের পড়াশোনার খরচ নিজেই বহন করতে পারেন।

আপনি কি একজন গৃহিণী?

অনেক শিক্ষিত গৃহিণী গৃহস্থালির কাজের পাশাপাশি কোন কাজ করে আয় করতে চান। কিন্তু তারা চাইলেও নানা সমস্যার কারণে কোন চাকুরী বা ব্যাবসায় যুক্ত হতে পারেন না। তাদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং হতে পারে সবচেয়ে উপযুক্ত একটি মাধ্যম। একজন গৃহিণী আইটি দক্ষতা অর্জন করে প্রতিদিন বা সুবিধা মত সময়ে কাজ করে আয় এবং নিজের একটি পরিচয় তৈরি করতে পারেন।

আপনি কি একজন চাকুরীজীবী?

বর্তমানে চাকুরী করে অনেকেই হয়তো নিজের সকল প্রয়োজন মেটাতে হিমিশিম খাচ্ছে। অনেকে হয়তো চাকুরীই করতে চাচ্ছেন না, নিজের কিছু করতে চাচ্ছেন। অনেকে হয়তো চাকুরীর পরের সময় গুলো কাজে লাগাতে চাচ্ছেন। প্রতিদিন ৩/৪ ঘণ্টা সময় দিলে শিখবে সবাই এর যে কোন আইটি কোর্সের মাধ্যমে কাজ শিখে ফ্রিল্যান্সিং করে আপনার বাড়তি আয়ের চাহিদা মেটানো সম্ভব।

আপনি কি একজন উদ্যোক্তা?

আপনি যে কোন ব্যাবসা করেন না কেনো, আপনার বিভিন্ন আইটি কাজের প্রয়োজন হবেই। আপনার নিজের যদি ভালো কাজের আইডিয়া থাকে তবে সেটা অন্যের মাধ্যমে সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন। কিন্তু আপনি নিজে যদি কোন আইটি দক্ষতা না রাখেন, তাহলে বর্তমান সময়ে যে কোন ব্যাবসা বা নতুন কোন আইডিয়া নিয়ে কাজ করলে সাফল্য অর্জন করা খুবই কঠিন হয়ে যাবে।

শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সাপোর্ট ব্যাবস্থা

শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন টপিক ক্লাসের পরেও আরো বিস্তারিত জানতে চায়। ক্লাসে দেয়া এ্যাসাইনমেন্ট করার সময় কোন জায়গায় আটকে যেতে পারে। এই সময় একটু সাপোর্ট হলে তারা কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারেন। আবার কোর্স শেষে ক্লায়েন্ট এর কাজ করার সময়েও সাপোর্ট প্রয়োজন হয়। তাই শিখবে সবাই তার সকল শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সাপোর্ট ব্যাবস্থার আয়োজন রেখেছে। এই সাপোর্ট লাইফটাইম সম্পুর্ন বিনামূল্যে প্রদান করা হবে।

অনলাইন লাইভ সাপোর্ট

প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত সাপোর্ট লিঙ্কে ক্লিক করে সাপোর্ট প্ল্যাটফর্মে জয়েন করতে পারবেন এবং সেখানে মেন্টর থাকবেন লাইভ সাপোর্ট দেওয়ার জন্য। নিজের স্ক্রিন শেয়ার করে বা স্কাইপ কলের মাধ্যমেও মেন্টর সাহায্য করবে।

অফলাইন সাপোর্ট

শিখবে সবাই এর যে কোন শিক্ষার্থী, সে অনলাইন লাইভ কোর্সের হোক কিংবা অফলাইন কোর্সের হোক। শিখবে সবাই এর যে কোন ক্যাম্পাসে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সাপোর্টের জন্য আসতে পারবেন। ক্যাম্পাসে সাপোর্ট সেন্টারে বসে মেন্টর এর কাছ থেকে সরাসরি কাজ বুঝে নেওয়া যাবে।

আমাদের শিক্ষার্থীদের সফলতার গল্প

অর্থহীন লেখা যার মাঝে আছে অনেক কিছু। হ্যাঁ, এই লেখার মাঝেই আছে অনেক কিছু। যদি তুমি মনে করো, এটা তোমার কাজে লাগবে, তাহলে তা লাগবে কাজে। নিজের ভাষায় লেখা দেখতে অভ্যস্ত হও। মনে রাখবে লেখা অর্থহীন হয়, যখন তুমি তাকে অর্থহীন মনে করো; আর লেখা অর্থবোধকতা তৈরি করে, যখন তুমি তাতে অর্থ ঢালো। যেকোনো লেখাই তোমার কাছে অর্থবোধকতা তৈরি করতে পারে, যদি তুমি সেখানে অর্থদ্যোতনা দেখতে পাও। …ছিদ্রান্বেষণ? না, তা হবে কেন?

আমাদের শিক্ষার্থীরা কোথায় কাজ করেন?

ফাইভার

নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য ফাইভার মার্কেটপ্লেস খুবই জনপ্রিয়। কারন এখানে নতুনরা সহজেই ছোট ছোট কাজ দিয়ে নিজের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন। এখানে কাজের নির্দিষ্ট প্যাকেজ বা গিগ করা থাকে যা ক্ল্যায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার উভয়ের জন্যই সুবিধাজনক। শুধু ছোট কাজ নয়, পর্যায়ক্রমে এখানে বড় বড় কাজ ও পেতে শুরু করেন ফ্রিল্যান্সার রা। আমাদের শিক্ষার্থীরা গড়ে প্রতি মাসে প্রায় ৪০০ ডলার এর মতো আয় করে থাকেন।

আপওয়ার্ক

আপওয়ার্ক একটি বড় আন্তর্জাতিক কাজের বাজার। এখানে বড় বড় কোম্পানি গুলো আউটসোর্সিং করে কাজ করায়। আমাদের অনেক শিক্ষার্থী এই মার্কেটে টপ রেটেড ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করছেন। তুলনামূলক এখানে কাজের মূল্য একটু বেশী পাওয়া যায়।

রিমোট জব

বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ভালো মানের কাজ সরবরাহ করার ফলে আমাদের শিক্ষার্থীদের সাথে ক্লায়েন্ট এর অনেক ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়ে যায়। মার্কেটপ্লেসের বাইরেও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে অনেক ক্লায়েন্ট এর কাজ করে থাকেন আমাদের শিক্ষার্থীরা। এর ফলে অনেক ক্ল্যায়েন্ট মাসিক চুক্তি করে কাজ করায় যেটা চাকুরীর মতো। আমাদের শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে বসেই সেই সকল ক্লায়েন্ট দের ফুল টাইম বা চুক্তিবদ্ধ কাজ করে থাকেন যাকে বলা হয় রিমোট জব। রিমোট জবে একজন ফ্রিল্যান্সার গড়ে মাসে ৮০০ থেকে ১০০০ ডলার করে থাকে।

লোকাল জব

আন্তর্জাতিক বাজার ছাড়াও বাংলাদেশেও কিন্তু আইটির বিভিন্ন কাজ থাকে। মূলত দেশীয় ছোট এবং মাঝারী ব্যাবসায়ি প্রতিষ্ঠান গুলো আউটসোর্সিং করেই কাজ করায়। আমাদের অনেক শিক্ষার্থী এরকম লোকাল অনেক কাজ করে থাকেন। এখন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে সহজেই পেমেন্ট নেওয়া যায়। আবার চাইলে সরাসরি কথা বলেও অনেকে লোকাল বিভিন্ন প্রজেক্টে কাজ করছেন। এখানে সুবিধা হচ্ছে কাউকে কোন কমিশন দিতে হয় না যেটা উপরের সকল মাধ্যমেই প্রযোজ্য।

নিউজ কাভারেজ

কোর্স মেন্টর

তাহসিন শাহরিয়ার, শিখবে সবাইতে আছেন প্রফেশনাল ফুল স্ট্যাক ওয়েব ডেভেলপার এবং মেন্টর হিসেবে। জাভাস্ক্রিপ্ট এবং রিয়েক্ট জেএস এ রয়েছে বিশেষ দক্ষতা। এ পর্যন্ত অনেকগুলো প্রজেক্টে সফলতার সাথে কাজ করেছেন। মেন্টরিং এর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করেন ফাইভার এবং লোকাল মার্কেটপ্লেসে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১০০ এর অধিক শিক্ষার্থীকে সরাসরি প্রশিক্ষন দিয়েছেন তিনি। তাদের অনেকেই কাজ করছেন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে।

তাহসিন শাহরিয়ার

প্রশিক্ষণ দিয়েছেন : ১০০+ শিক্ষার্থী

তাহসিন শাহরিয়ার, শিখবে সবাইতে আছেন প্রফেশনাল ফুল স্ট্যাক ওয়েব ডেভেলপার এবং মেন্টর হিসেবে। জাভাস্ক্রিপ্ট এবং রিয়েক্ট জেএস এ রয়েছে বিশেষ দক্ষতা। এ পর্যন্ত অনেকগুলো প্রজেক্টে সফলতার সাথে কাজ করেছেন। মেন্টরিং এর পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করেন ফাইভার এবং লোকাল মার্কেটপ্লেসে। এখন পর্যন্ত প্রায় ১০০ এর অধিক শিক্ষার্থীকে সরাসরি প্রশিক্ষন দিয়েছেন তিনি। তাদের অনেকেই কাজ করছেন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে।

কিভাবে শুরু করবেন?

আপনার পছন্দের কোর্সে পেমেন্ট করুন

অর্থহীন লেখা যার মাঝে আছে অনেক কিছু। হ্যাঁ, এই লেখার মাঝেই আছে অনেক কিছু। যদি তুমি মনে করো, এটা তোমার কাজে লাগবে, তাহলে তা লাগবে কাজে। নিজের ভাষায় লেখা দেখতে অভ্যস্ত হও। মনে রাখবে লেখা অর্থহীন হয়, যখন তুমি তাকে অর্থহীন মনে করো; আর লেখা অর্থবোধকতা তৈরি করে, যখন

আপনার ইমেইলে ক্লাসের লিঙ্ক দেখুন

অর্থহীন লেখা যার মাঝে আছে অনেক কিছু। হ্যাঁ, এই লেখার মাঝেই আছে অনেক কিছু। যদি তুমি মনে করো, এটা তোমার কাজে লাগবে, তাহলে তা লাগবে কাজে। নিজের ভাষায় লেখা দেখতে অভ্যস্ত হও। মনে রাখবে লেখা অর্থহীন হয়, যখন তুমি তাকে অর্থহীন মনে করো; আর লেখা অর্থবোধকতা তৈরি করে, যখন

নির্দিষ্ট সময়ে ক্লাস করুন

অর্থহীন লেখা যার মাঝে আছে অনেক কিছু। হ্যাঁ, এই লেখার মাঝেই আছে অনেক কিছু। যদি তুমি মনে করো, এটা তোমার কাজে লাগবে, তাহলে তা লাগবে কাজে। নিজের ভাষায় লেখা দেখতে অভ্যস্ত হও। মনে রাখবে লেখা অর্থহীন হয়, যখন তুমি তাকে অর্থহীন মনে করো; আর লেখা অর্থবোধকতা তৈরি করে, যখন

কম্পিউটারের নুন্যতম যোগ্যতা

রিয়েক্ট জেএস কোর্সের জন্য একজন শিক্ষার্থীকে অবশ্যই এইচটিএমএল, সিএসএস সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকতে হবে। তাহলেই তিনি এই কোর্সে ভালো করতে পারবেন।

যোগাযোগ করুন

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা কোন কিছু জানার থাকলে নির্দিধায় নিচের ফর্মটি পূরণ করুন। আমাদের দক্ষ প্রতিনিধি আপনাদের সকল প্রশ্নের সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করবেন। মাঝে মধ্যে আমাদের প্রতিনিধি রা ব্যাস্ত থাকার কারণে আপনার প্রশ্নের উত্তর পেতে দেরি হলে আমরা তার জন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। ততক্ষণে আপনি আমাদের ফেইসবুক পেইজ এবং ফেইসবুক গ্রুপ দেখতে থাকুন।

আপনার বার্তা লেখুন
আপনার নাম
আপনার ঠিকানা
মোবাইল নাম্বার
আপনার ইমেইল
ভর্তি হোন