3D ভিজুয়ালাইজেশন

- বনানী ব্রাঞ্চ

  • কোর্সের মেয়াদ : ৪ মাস
  • কোর্স ফী : ২০,০০০ টাকা
  • ক্লাসের সময় : রবিবার ও বুধবার - রাত ৯টা - ১১টা
  • ক্লাস শুরুর তারিখ : ৫ই ডিসেম্বর ২০২১

অভিজ্ঞতা অর্জন হয় দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে। আর দক্ষতাই পারে সাফল্যের শিখরে পৌঁছে দিতে। তাই সময় নষ্ট না করি, দক্ষতা বৃদ্ধি করি।

3D ভিজুয়ালাইজেশন

যারা 3D industry তে কাজ করতে আগ্রহী তাদের জন্যই শিখবে সবাই এর এই 3D Architectural Rendering কোর্স। Architecture নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী বা ইতিমধ্যে Architecture/Civil এর শিক্ষার্থী সবার জন্যই এটি একটি কমপ্লিট কোর্স। 3D ডিজাইন এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে বিভিন্ন কোম্পানি এবং অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে, প্রয়োজন শুধু দক্ষ এবং অভিজ্ঞ ডিজাইনারের।

কোর্স ডিটেলস ভিডিও

100+

গ্রাডুয়েটস

64 ঘন্টা

ক্লাস আওয়ার্স

32

লেকচার

২৪/৭

অনলাইন সাপোর্ট

আমাদের কোর্স কারিকুলাম

3D Architectural Rendering কোর্সের শুরুতেই থাকবে Auto CAD। এই সফটওয়্যার এর সম্পূর্ণ ব্যাসিক এর পাশাপাশি ২ডি এবং ৩ডি ডিজাইন নিয়ে ধারনা দেয়া হবে। পাশাপাশি ডিজাইনকে কনভার্ট করে ২ডি এবং ৩ডি তে কাজ করা হবে। এরপর কাজ করা হবে 3DS Max এবং Vray নিয়ে। ডিজাইনের লেআউট তৈরি করার পর এতে লাইটিং করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। লাইটিং এর বেসিক বুঝানোর পাশাপাশি কমপ্লিট ডিজাইন করে দেখানো হবে। ইন্টেরিয়র ডিজাইন এবং এক্সটেরিয়র ডিজাইন নিয়ে কাজ করা হবে এই কোর্সে। ক্লায়েন্ট এর কাছে সুন্দর করে প্রেজেন্টেশন এর জন্য এই ডিজাইনে বৈচিত্র্য আনতে হয়। সম্পূর্ণ ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র ডিজাইন করে দেখানো হবে এই কোর্সে। পাশাপাশি এডোব ফটোশপ এর কিছু কাজ দেখানো হবে যেগুলো এই প্রজেক্ট এর জন্য প্রয়োজন হবে।

  • Auto CAD
  • 3DS Max and VRAY
  • Photoshop
  • Fiverr
  • Upwork
  • ০%
  • ২৫%
  • ৫০%
  • ৭৫%
  • ১০০%

Auto CAD

3D Architectural Rendering কোর্সের শুরুতেই থাকবে Auto CAD। এই সফটওয়্যার এর সম্পূর্ণ ব্যাসিক এর পাশাপাশি ২ডি এবং ৩ডি ডিজাইন নিয়ে ধারনা দেয়া হবে। পাশাপাশি ডিজাইনকে কনভার্ট করে ২ডি এবং ৩ডি তে কাজ করা হবে।

3DS Max and VRAY

3DS Max এবং Vray নিয়ে। ডিজাইনের লেআউট তৈরি করার পর এতে লাইটিং করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। লাইটিং এর বেসিক বুঝানোর পাশাপাশি কমপ্লিট ডিজাইন করে দেখানো হবে।

Photoshop

ইন্টেরিয়র ডিজাইন এবং এক্সটেরিয়র ডিজাইন নিয়ে কাজ করা হবে এই কোর্সে। ক্লায়েন্ট এর কাছে সুন্দর করে প্রেজেন্টেশন এর জন্য এই ডিজাইনে বৈচিত্র্য আনতে হয়। সম্পূর্ণ ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র ডিজাইন করে দেখানো হবে এই কোর্সে। পাশাপাশি এডোব ফটোশপ এর কিছু কাজ দেখানো হবে যেগুলো এই প্রজেক্ট এর জন্য প্রয়োজন হবে।

Fiverr

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফাইভার। নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য একটি আদর্শ প্ল্যাটফর্ম। কিভাবে এই মার্কেটপ্লেসে প্রোফাইল বানাতে হবে, পোর্টফলিও তৈরি করা, জব এর জন্য বিড করা, ক্লায়েন্ট কমিউনিকেশন, পেমেন্ট গেটওয়ে সহ যাবতীয় সকল কিছু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এবং প্র্যাকটিকালি কাজ করা হবে এই ক্লাসগুলোতে। শিক্ষার্থীদের যথাযথ উপায়ে সাহায্য করা হবে মার্কেটপ্লেসে নিজেদের জায়গা করে নেয়ার জন্য।

Upwork

অভিজ্ঞ ফ্রিল্যান্সারদের জন্য আদর্শ প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে আপওয়ার্ক। শিখবে সবাই এর ফ্রিল্যান্সিং ক্লাসগুলোর শেষদিকে আপওয়ার্ক নিয়েও বিস্তারিত শেখানো হয় শিক্ষার্থীদের। মার্কেটপ্লেসে প্রোফাইল বানাতে হবে, পোর্টফলিও তৈরি করা, জব এর জন্য বিড করা, ক্লায়েন্ট কমিউনিকেশন, পেমেন্ট গেটওয়ে সহ যাবতীয় সকল কিছু নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এবং প্র্যাকটিকালি কাজ করা হবে এই ক্লাসগুলোতে। শিক্ষার্থীদের যথাযথ উপায়ে সাহায্য করা হবে মার্কেটপ্লেসে নিজেদের জায়গা করে নেয়ার জন্য।

কোর্স মেন্টর

নিশাতুল ইসলাম

মেন্টর - আর্কিটেকচারাল ডিজাইনার

প্রশিক্ষণ দিয়েছেন : 100+

নতুনকে জানার ইচ্ছা এবং কাজ শেখার তীব্র আগ্রহ থেকেই "3D Architectural Rendering" নিয়ে কাজ শুরু করেন তিনি। এখন পর্যন্ত প্রায় ১০০ এর অধিক প্রজেক্টে সফলভাবে কাজ শেষ করেছেন তিনি। নিজে কাজ করার পাশাপাশি ভালোবাসেন অন্যকে কাজ শেখাতে। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের পাশাপাশি লোকাল মার্কেটে অনেক প্রজেক্ট সম্পন্ন করেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি যুক্ত আছেন শিখবে সবাই তে মেন্টর হিসেবে।

কোর্সটা কি আপনার জন্য?

আপনি কি একজন শিক্ষার্থী?

পড়াশোনার পাশাপাশি আইটি কাজের বাস্তবমুখী শিক্ষা একজন শিক্ষার্থীর বর্তমান এবং ভবিষ্যতকে উজ্জ্বল করবে এবং বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বা কাজের সুযোগ করে দিবে এতে কোন সন্দেহ নেই। বরং পড়াশোনার পাশাপাশি অনেক শিক্ষার্থী বিভিন্ন খন্ডকালিন কাজ করতে চান। আইটি কোন কাজে দক্ষ হলে একজন শিক্ষার্থী পড়াশোনার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মার্কেটে কাজ করতে পারেন এবং নিজের পড়াশোনার খরচ নিজেই বহন করতে পারেন।

আপনি কি একজন গৃহিণী?

অনেক শিক্ষিত গৃহিণী গৃহস্থালির কাজের পাশাপাশি কোন কাজ করে আয় করতে চান। কিন্তু তারা চাইলেও নানা সমস্যার কারণে কোন চাকুরী বা ব্যাবসায় যুক্ত হতে পারেন না। তাদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং হতে পারে সবচেয়ে উপযুক্ত একটি মাধ্যম। একজন গৃহিণী আইটি দক্ষতা অর্জন করে প্রতিদিন বা সুবিধা মত সময়ে কাজ করে আয় এবং নিজের একটি পরিচয় তৈরি করতে পারেন।

আপনি কি একজন চাকুরীজীবী?

বর্তমানে চাকুরী করে অনেকেই হয়তো নিজের সকল প্রয়োজন মেটাতে হিমিশিম খাচ্ছে। অনেকে হয়তো চাকুরীই করতে চাচ্ছেন না, নিজের কিছু করতে চাচ্ছেন। অনেকে হয়তো চাকুরীর পরের সময় গুলো কাজে লাগাতে চাচ্ছেন। প্রতিদিন ৩/৪ ঘণ্টা সময় দিলে শিখবে সবাই এর যে কোন আইটি কোর্সের মাধ্যমে কাজ শিখে ফ্রিল্যান্সিং করে আপনার বাড়তি আয়ের চাহিদা মেটানো সম্ভব।

আপনি কি একজন উদ্যোক্তা?

আপনি যে কোন ব্যাবসা করেন না কেনো, আপনার বিভিন্ন আইটি কাজের প্রয়োজন হবেই। আপনার নিজের যদি ভালো কাজের আইডিয়া থাকে তবে সেটা অন্যের মাধ্যমে সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন। কিন্তু আপনি নিজে যদি কোন আইটি দক্ষতা না রাখেন, তাহলে বর্তমান সময়ে যে কোন ব্যাবসা বা নতুন কোন আইডিয়া নিয়ে কাজ করলে সাফল্য অর্জন করা খুবই কঠিন হয়ে যাবে।

শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সাপোর্ট ব্যাবস্থা

শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন টপিক ক্লাসের পরেও আরো বিস্তারিত জানতে চায়। ক্লাসে দেয়া এ্যাসাইনমেন্ট করার সময় কোন জায়গায় আটকে যেতে পারে। এই সময় একটু সাপোর্ট হলে তারা কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারেন। আবার কোর্স শেষে ক্লায়েন্ট এর কাজ করার সময়েও সাপোর্ট প্রয়োজন হয়। তাই শিখবে সবাই তার সকল শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ সাপোর্ট ব্যাবস্থার আয়োজন রেখেছে। এই সাপোর্ট লাইফটাইম সম্পুর্ন বিনামূল্যে প্রদান করা হবে।

অনলাইন লাইভ সাপোর্ট

প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে শিক্ষার্থীরা নির্ধারিত সাপোর্ট লিঙ্কে ক্লিক করে সাপোর্ট প্ল্যাটফর্মে জয়েন করতে পারবেন এবং সেখানে মেন্টর থাকবেন লাইভ সাপোর্ট দেওয়ার জন্য। নিজের স্ক্রিন শেয়ার করে বা স্কাইপ কলের মাধ্যমেও মেন্টর সাহায্য করবে।

অফলাইন সাপোর্ট

শিখবে সবাই এর যে কোন শিক্ষার্থী, সে অনলাইন লাইভ কোর্সের হোক কিংবা অফলাইন কোর্সের হোক। শিখবে সবাই এর যে কোন ক্যাম্পাসে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত সাপোর্টের জন্য আসতে পারবেন। ক্যাম্পাসে সাপোর্ট সেন্টারে বসে মেন্টর এর কাছ থেকে সরাসরি কাজ বুঝে নেওয়া যাবে।

আমাদের শিক্ষার্থীদের সফলতার গল্প

আমাদের শিক্ষার্থীরা কোথায় কাজ করেন?

সফল ভাবে স্কিল্ল ডেভ্লপমেন্ট এবং সফট স্কিল এর পরে আমাদের স্টুডেন্টরা পপুলার অনলাইন মারকেটপ্লেস আপওয়ার্ক (Upwork), ফাইবার (Fiverr), পিপল-পার-আওয়ার (PPH) সহ আরও অনেক জায়গায় সফল ভাবে ফ্রিলাঞ্চিং এর কাজের সাথে জড়িত। এছারাও লোকাল মার্কেটে ভালো পরিমাণ কাজের সাথেও জড়িত আছেন অনেকেই। আমাদের কোর্স গুলো ঠিক এমন ভাবে গঠিত যাতে একজন স্টুডেন্টরা অনলাইন এবং অফলাইন মার্কেটের জন্য নিজেদেরকে প্রস্তুত করে নিতে পারেন।

ফাইভার

নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য ফাইভার মার্কেটপ্লেস খুবই জনপ্রিয়। কারন এখানে নতুনরা সহজেই ছোট ছোট কাজ দিয়ে নিজের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন। এখানে কাজের নির্দিষ্ট প্যাকেজ বা গিগ করা থাকে যা ক্ল্যায়েন্ট এবং ফ্রিল্যান্সার উভয়ের জন্যই সুবিধাজনক।

আপওয়ার্ক

আপওয়ার্ক একটি বড় আন্তর্জাতিক কাজের বাজার। এখানে বড় বড় কোম্পানি গুলো আউটসোর্সিং করে কাজ করায়। আমাদের অনেক শিক্ষার্থী এই মার্কেটে টপ রেটেড ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করছেন। তুলনামূলক এখানে কাজের মূল্য একটু বেশী পাওয়া যায়।

রিমোট জব

বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে ভালো মানের কাজ সরবরাহ করার ফলে আমাদের শিক্ষার্থীদের সাথে ক্লায়েন্ট এর অনেক ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়ে যায়। মার্কেটপ্লেসের বাইরেও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে অনেক ক্লায়েন্ট এর কাজ করে থাকেন আমাদের শিক্ষার্থীরা। এর ফলে অনেক ক্ল্যায়েন্ট মাসিক চুক্তি করে কাজ করায় যেটা চাকুরীর মতো।

লোকাল জব

আন্তর্জাতিক বাজার ছাড়াও বাংলাদেশেও কিন্তু আইটির বিভিন্ন কাজ থাকে। মূলত দেশীয় ছোট এবং মাঝারী ব্যাবসায়ি প্রতিষ্ঠান গুলো আউটসোর্সিং করেই কাজ করায়। আমাদের অনেক শিক্ষার্থী এরকম লোকাল অনেক কাজ করে থাকেন। এখন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে সহজেই পেমেন্ট নেওয়া যায়। আবার চাইলে সরাসরি কথা বলেও অনেকে লোকাল বিভিন্ন প্রজেক্টে কাজ করছেন। এখানে সুবিধা হচ্ছে কাউকে কোন কমিশন দিতে হয় না যেটা উপরের সকল মাধ্যমেই প্রযোজ্য।

নিউজ কাভারেজ

প্রতিষ্ঠার পর থেকে আইটি সেক্টরে দক্ষতা উন্নয়নে সফলতার সাথে কাজ করছে দেশের শীর্ষস্থানীয় ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষন ইন্সটিটিউট শিখবে সবাই। এই দীর্ঘ পথচলায় প্রতিষ্ঠানটি পাশে পেয়েছে দেশের স্বনামধন্য প্রায় সকল সংবাদমাধ্যমকে। শিখবে সবাই এর পাশে থাকার জন্য এবং সর্বস্তরের মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য গনমাধ্যমের প্রতি রইলো কৃতজ্ঞতা।

কিভাবে শুরু করবেন?

শিখবে সবাইতে ভর্তি হতে ইচ্ছুক অনেকেই ভাবেন কিভাবে ভর্তি হবেন, ক্লাস করবেন, ক্লাসের প্রকৃয়াগুলো কি। এই প্রকৃয়াগুলো একদম সহজ এবং সুন্দর করে গড়ে তুলেছে শিখবে সবাই। আপনাদের বোঝার সুবিধার্থে এখানে সুন্দরভাবে তুলে ধরে হয়েছে।

আপনার পছন্দের কোর্সে পেমেন্ট করুন

আপনি যে কোর্সে ভর্তি হতে ইচ্ছুক, তার জন্য শুরুতেই পেমেন্ট করতে হবে। এই পেমেন্ট আপনি শিখবে সবাই এর যেকোনো অফিসে এসে করতে পারবেন। পাশাপাশি শিখবে সবাই এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি বিকাশ, রকেট অথবা নগদ ব্যবহার করেও বাসায় বসে পেমেন্ট করে মানি রিসিপ্ট পেতে পারেন। ঘরে-বাহিরে যেখানেই থাকেন না কেনো, খুব সহজেই আপনি এই প্রকৃয়া সম্পন্ন করতে পারেন।

আপনার ইমেইল চেক করুন

আপনি যদি ওয়েবসাইট অথবা বিকাশ/নগদ/রকেট ব্যবহার করে পেমেন্ট করেন, তাহলে ইমেইলে আপনার মানি রিসিপ্ট চলে যাবে। এছাড়াও আপনার ব্যাচের জন্য নির্ধারিত ফেসবুক গ্রুপ, ক্লাসের লিঙ্ক ইমেইলে দিয়ে দেয়া হবে। তাই, নিয়মিত ইমেইল চেক করুন।

নির্দিষ্ট সময়ে ক্লাস করুন

আপনাকে ইমেইলে দেয়া নির্ধারিত তারিখেই ক্লাস শুরু হবে। কোর্স করে ভালো কিছু শিখতে এবং সফল ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে উঠতে নিয়মিত ক্লাস এবং এসাইনমেন্ট এর বিকল্প নেই। তাই, মেন্টর নির্দেশনা মেনে চলতে চেষ্টা করুন এবং নিয়মিত ক্লাস করুন।

কম্পিউটারের নুন্যতম যোগ্যতা

এই কোর্স করার জন্য একজন শিক্ষার্থীকে অবশ্যই ডিজাইন এর ব্যাসিক জানতে হবে। সেই সাথে এডোব ইলাস্ট্রেটর এবং এডোব ফটোশপ সফটওয়্যার পরিচালনায় দক্ষতা থাকলে ভালো হবে। কম্পিউটার কনফিগারেশন হতে হবে নূন্যতম কোর আই থ্রি - ৫ম জেনারেশন প্রসেসর, ৮ গিবি র‍্যাম এবং একটি এসএসডি ড্রাইভ।

যোগাযোগ করুন

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা কোন কিছু জানার থাকলে নির্দিধায় নিচের ফর্মটি পূরণ করুন। আমাদের দক্ষ প্রতিনিধি আপনাদের সকল প্রশ্নের সঠিক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করবেন। মাঝে মধ্যে আমাদের প্রতিনিধি রা ব্যাস্ত থাকার কারণে আপনার প্রশ্নের উত্তর পেতে দেরি হলে আমরা তার জন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। ততক্ষণে আপনি আমাদের ফেইসবুক পেইজ এবং ফেইসবুক গ্রুপ দেখতে থাকুন।